জন্ডিস কি? এর লক্ষণ কি কি?

0
2

গল্ড ব্লাডার হতে লিভারের পিত্তনিঃস্বরন ক্রীয়ার স্বল্পতা বা অবরুদ্ধতা বশত পিত্তরসটা অন্ত্রে যেতে না পেরে যখন রক্তের সাথে মিশ্রিত হয়ে রক্তে স্বঞ্চালিত হয় তখন হাত,পা,চুখ,মুখ,নখ সহ সমস্ত শরির হলুদ আকার ধারণ করে।একেই জন্ডিস বলে।
জন্ডিস আসলে নিজস্ব কোন রোগ না। এটি আসলে লিভাবে নানা রকম রোগের মধ্যে একটা লক্ষন।
জন্ডিস দুই ধরনের
**Obstructive or Haepatogenus
**Non-obstructive or Hematogenous
-১:Haepatogenus
জন্ডিসের কারনঃ
পিত্তের পাথর দ্বারা পিত্তনালী বন্ধ হয়ে যাওয়া বা পিত্তের রাস্তার উপরে টিউমার প্রভৃতির চাপ,পিত্তনালীর মধ্যে কৃমি ঢুকার কারনে পিত্তনালী বন্ধ হওয়া,কোন কারনে পিত্তনালি সরু হয়ে যাওয়া, ডিওডেনাম এ প্রদাহ এর কারনে পিত্তনালী সংকোচন হওয়া,দীর্ঘদিনের অজীর্ন পীড়া, ঠান্ডা লেগে পিত্তনালী ঝিল্লির প্রদাহ। উপরুক্ত কারনগুলোই জন্ডিস কারন।
২:Heamatogenus জন্ডিসের কারনঃ
পিত্তরস নিঃসারন পথ অবরুদ্ধ বা বন্ধ না হয়েও এই রোগ হয়।এই রোগ রক্তকনিকা ধংস হওয়ার প্রক্রিয়া হতে উৎপন্ন হয়।
এই রোগের লক্ষন
* সবিরাম বা অল্পবিরাম জ্বর
**পাইমিয়া যেমন দাঁতের যে ক্ষত সেটাকে পাইমিয়া বলে।
**ইয়োলো ফিভার,সাপের আঘাত
**রক্তাধিক্য হওয়া ( লিভারের মধ্যে রক্তের পরিমান বেরে যাওয়া কে রক্তাধিক্য বলে)।
**সিরসিস অফ দা লিভার
**কোষ্টবদ্ধতা
**মদ্যপান
**কোন অজ্ঞাত ভাইরাসের আক্রমনের কারনে বা লোহিত রক্ত কনিকা ভেংগে যাওয়ার কারনে এই সমস্ত রোগ দেখা দেয়।
জন্ডিসের লক্ষনঃ
১- প্রথমে চুখের সাদা অংশটা হলুদ হয়ে যায়। ধীরে ধীরে হাত,পা,নখ অর্থাৎ সমস্ত শরির হলুদ হয়ে যায়। অনেক সময় রোগি যা দেখে সবই হলুদ বর্ণের দেখে।
২-প্রস্রাব এবং ঘাম টাও হলুদ বর্ণের হয়।
৩-প্রায়ই পেট ফাপা বা অজীর্ন লক্ষন থাকে,ক্ষধা লোপ পায়,বমি বমি ভাব
৪-কোষ্টবদ্ধতা থাকে। পায়খানার মধ্যে মাটির বর্ণ,মলে দুর্গন্ধ
৫- তৈলাক্ত খাবারের প্রতি অরুচি,মুখে তিতা স্বাদ।কোন কোন সময় চামড়ায় চুলকানির সৃষ্টি হয়।
৬- পাকস্থলীতে ব্যাথা শুরু হয়,লিভার বড় হয়ে যায় ।
৭- শারিরিক ও মানুষিক দুর্বলতা,অবসাদ,মাথা ধরা,সামান্য জ্বর, খিচুনি, অজ্ঞান হওয়া।
৮- গায়ের তাপমাত্রা সবসময় ২ কি ১ডিগ্রি কম হওয়া।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here